General Knowledge selected articles for BCS, Job and Admission preparation.

We have currently 255 General Knowledge International Affairs reading Materials for your exclusive preparation.
তু ইউইউজন্মঃ ৩০ ডিসেম্বর ১৯৩০জাতীয়তাঃ চীনা
বীরেন্দ্র শেওয়াগ ব্যক্তিগত তথ্যঃজন্ম: ২০ অক্টোবর ১৯৭৮। ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের একজন স্বনামধন্য খেলোয়াড়। ব্যাটিংয়ের ধরণঃ ডান হাতি ব্যাটসম্যান ।বোলিংয়ের ধরণঃ ডান হাতি অফ ব্রেক বলার ।ভূমিকাঃ Opening batsman, occasional offspinner ।তিনি বীরু, নাজফগড়ের নওয়াব ও আধুনিক ক্রিকেটের জেন মাস্টার নামেও পরিচিত।আন্তর্জাতিক তথ্যঃজাতীয় পার্শ্বঃ ভারত।টেস্ট অভিষেকঃ ৩ নভেম্বর ২০০১ বনাম দঃআফ্রিকা ।শেষ টেস্টঃ ১৩ ডিসেম্বর ২০১২ বনাম ইংল্যান্ড ।
উইলিয়াম সেসিল ক্যাম্পবেল জন্মঃ ২৮ জুন ১৯৩০জাতীয়তাঃ আমেরিকান উইলিয়াম সেসিল ক্যাম্পবেল হলেও একজন আইরিশ বংশভূত আমেরিকান জীববিজ্ঞানী। পরজীবী সৃষ্ট রোগ প্রতিরোধের যুগান্তকারী কিছু প্রতিষেধক আবিষ্কারের জন্য তিনি চিকিৎসাবিজ্ঞানে নোবেল পুরষ্কার লাভ করেন।তিনি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রিউ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন।
আজিজ সেঞ্চারজন্মঃ ৮ সেপ্টেম্বের, ১৯৪৬জাতীয়তাঃ তুরস্ক এবং আমেরিকা রসায়নে নোবেল পেয়েছেন তুরস্কের নর্থ ক্যারোলিনা বিশ্ববিদ্যালয়ে বায়োকেমিস্ট্রি ও বায়োফিজিক্স-এর অধ্যাপক। এই বিজ্ঞানী গবেষণা করে দেখিয়েছেন, নিউক্লিওটাইড এক্সিজন রিপেয়ার পদ্ধতি বর্ণনা করেন, যে পদ্ধতির মাধ্যমে কোষ তার ডিএনএ-তে অতিবেগুনি রশ্মি জনিত ক্ষতি সারিয়ে নিতে পারে৷
টোমাস রবার্ট লিন্ডালজন্মঃ জানুয়ারি ২৮, ১৯৩৮জাতীয়তাঃ সুইডেন রসায়নে নোবেল পেয়েছেন সুইডেনের ফ্রান্সিস ক্রিক ইনস্টিটিউটের এমেরিটাস পরিচালক ৷ এই বিজ্ঞানী গবেষণা করে দেখিয়েছেন, ডিএনএ আসলে একটি অতি ভঙ্গুর মলিকিউল এবং যে হারে ডিএনএ-র অবক্ষয় ঘটে, তা-তে পৃথিবীতে জীবনের বিকাশ ঘটা সম্ভব ছিল না৷ ফলে লিন্ডাল ‘বেস এক্সিজন রিপেয়ার’ নামের একটি মলিকিউলার প্রণালী আবিষ্কার করেন, যা অবিরাম আমাদের ডিএনএ-কে মেরামত করে চলে৷
পল মড্রিচজন্মঃ  ১৩ জুন, ১৯৪৬জাতীয়তাঃ যুক্তরাষ্ট্র রসায়নে নোবেল পেয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনা রাজ্যের ডিউক ইউনিভার্সিটি স্কুল অফ মেডিসিন-এ বায়োকেমিস্ট্রির অধ্যাপক৷ এই বিজ্ঞানী গবেষণা করে দেখান, দেহের কোষ কিভাবে বিভাজনের সময় ডিএনএ-র ভুলভ্রান্তি ঠিক করে নেয়৷
অ্যানগাস ডেটন জন্মঃ  ১৯ অক্টোবর, ১৯৪৫ জাতীয়তাঃ ব্রিটিস আমেরিকান অর্থনীতিতে নোবেল পেয়েছেন ব্রিটিশ-অ্যামেরিকান অর্থনীতিবিদ অ্যাংগাস ডিটন । তিনি প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক৷ সেখানে তিনি অর্থনীতি ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক পড়ান৷ ‘ভোগ, দারিদ্র্য এবং কল্যাণ’নিয়ে বিশেষ গবেষণার জন্য ২০১৫ সালে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কারটি দেয়া হয়েছে অধ্যাপক অ্যাংগাস ডিটনকে৷
জন্মঃ  মে ৩১, ১৯৪৮ (বয়স ৬৭) সোভিয়েত ইউনিয়ন জাতীয়তাঃ বেলুরুশিয়ান উল্লেখযোগ্য পুরস্কারঃ সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার (২০১৫)Peace Prize of the German Book Trade (2013)Prix Médicis (2013) একজন বেলুরুশিয়ান সাংবাদিক এবং লেখিকা। তিনি ২০১৫ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরষ্কার লাভ করেন। তিনি বেলুরুশের ইতিহাসে একমাত্র ব্যাক্তি যিনি নোবেল পুরষ্কার পেয়েছেন।
জন্মঃ আগস্ট ২৯, ১৯৪৩ (বয়স ৭২) সিডনী, নোভা স্কটিয়া জাতীয়তাঃ কানাডিয়ান প্রতিষ্ঠানঃ প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়, কুইন্স বিশ্ববিদ্যালয় উল্লেখযোগ্য পুরস্কারঃOC (2006)Benjamin Franklin Medal (2007)FRS (2009)Henry Marshall Tory Medal (2011)OOnt (2012)পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরুস্কার (২০১৫) কানাডিয়ান জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞান বা নক্ষত্রবিজ্ঞানী। ২০১৫ সালে তিনি জপানি পদার্থবিজ্ঞানী তাকাকি কাজিটার সাথে যৌথভাবে পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।
জন্মঃ  ৯ মার্চ ১৯৫৯ (বয়স ৫৬) জাতীয়তাঃ জাপানি প্রতিষ্ঠানঃ ইন্সটিটিউট ফর কসমিক রে রিসার্চ, টোকিও বিশ্ববিদ্যালয় উল্লেখযোগ্য পুরস্কারঃআসাহি পুরুস্কার (১৯৮৮)Bruno Rossi Prize (1989)নিশিনা স্মৃতি পুরুস্কার (১৯৯৯)Panofsky Prize (2002)জাপানা একাডেমি পুরুস্কার (২০১২)পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরুস্কার (২০১৫)
ভারতের পেসার জহির খান ব্যক্তিগত তথ্যঃ জন্মঃ ৭ অক্টোবর ১৯৭৮ (বয়স ৩৭)আহমেদনগর,মহারাষ্ট্র, ভারতডাকনামঃ জাক, জিপ্পি এবং জাককিউচ্চতাঃ ৬ ফুট ১ ইঞ্চি (১.৮৫ মিটার)ব্যাটিংয়ের ধরণঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যানবোলিংয়ের ধরণঃ বাহাতি ফাস্ট মিডিয়ামভূমিকাঃ বোলারআন্তর্জাতিক তথ্যঃজাতীয় পার্শ্বঃ ভারতটেস্ট অভিষেকঃ ১০ নভেম্বর ২০০০ বনাম বাংলাদেশশেষ টেস্টঃ২৬-৩০ ডিসেম্বর ২০১৩ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকাউইকেটঃ  ৮৯ ম্যাচে ৩০০ ওডিআই অভিষেকঃ    ৩ অক্টোবর ২০০০ বনাম কেনিয়া
ভারতের পেসার জহির খান ব্যক্তিগত তথ্যঃ জন্মঃ ৭ অক্টোবর ১৯৭৮ (বয়স ৩৭)আহমেদনগর,মহারাষ্ট্র, ভারতডাকনামঃ জাক, জিপ্পি এবং জাককিউচ্চতাঃ ৬ ফুট ১ ইঞ্চি (১.৮৫ মিটার)ব্যাটিংয়ের ধরণঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যানবোলিংয়ের ধরণঃ বাহাতি ফাস্ট মিডিয়ামভূমিকাঃ বোলারআন্তর্জাতিক তথ্যঃজাতীয় পার্শ্বঃ ভারতটেস্ট অভিষেকঃ ১০ নভেম্বর ২০০০ বনাম বাংলাদেশশেষ টেস্টঃ২৬-৩০ ডিসেম্বর ২০১৩ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকাউইকেটঃ  ৮৯ ম্যাচে ৩০০ ওডিআই অভিষেকঃ    ৩ অক্টোবর ২০০০ বনাম কেনিয়া
❖ পদার্থ বিজ্ঞানের জনক : আইজ্যাক নিউটন। ❖ বীজ গণিতের জনক : আল খাওয়াজমী। ❖ মনোবিজ্ঞানের জনক : উইলহেম উন্ড। ❖ প্রাণী বিজ্ঞানের জনক : এরিস্টটল। ❖ বাংলা মুক্তক ছন্দের জনক : কাজী নজরুল ইসলাম। ❖ সমাজ বিজ্ঞানের জনক : অগাষ্ট কোঁৎ। ❖ হিসাব বিজ্ঞানের জনক : লুকাপ্যাসিওলি। ❖ চিকিৎসা বিজ্ঞানের জনক : ইবনে সিনা। ❖ দর্শন শাস্ত্রের জনক : সক্রেটিস। ❖ রসায়ন বিজ্ঞানের জনক : জাবির ইবনে হাইয়ান। ❖ ইতিহাসের জনক : হেরোডোটাস। ❖ সনেটের জনক : পের্ত্রাক। ❖ বিজ্ঞানের জনক : থ্যালিস। ❖ মেডিসিনের জনক : হিপোক্রটিস।
ভূপৃষ্ঠের সব জায়গা সমান নয়। এ কারণে ভূগর্ভের বায়ুর চাপ ভূত্বকের সকল স্থানে এক রকম হয় না। কোন স্থানে চাপ খুব বেশি হলে সেই জায়গায় গর্ত বা ফাটলের সৃষ্টি হয়। ফলে এই গর্ত বা ফাটলের মধ্য দিয়ে ভূ-গর্ভস্থ বিভিন্ন রকম পদার্থ নির্গত হয়। আর ভূত্বকের দূর্বল অংশের যে ফাটলের মধ্য দিয়ে ভূগর্ভস্থ ধূম,গ্যাস, গলিত শিলা, ধূলি, ভস্ম, বিবিধ তরল ও কঠিন ধাতব পদার্থ নির্গত হয়, একে আগ্নেয়গিরি বলে। যেমন- জাপানের ফুজিয়াম, ইতালির ভিসুভিয়াস ইত্যাদি।
ইসরাইল ও জর্ডানের মাঝখানে অবস্থিত একটি হ্রদ ডেড সি নামে পরিচিত। হ্রদটির জলের তল সমুদ্রপৃষ্ঠের চেয়ে ৩৯৩ মিটার নিচে। আরবের শুষ্ক অঞ্চলে এর অবস্থান হওয়ায় হ্রদ থেকে বাষ্পীভবন খুব বেশি হয়। এখানে নামেমাত্র বৃষ্টিপাত হয়ে থাকে। যার কারণে ডেড সির পানিতে লবণের অনুপাত ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। বর্তমানে এর পানির আপেক্ষিক গুরুত্ব মানুষের শরীরের আপেক্ষিক গুরুত্বের চেয়ে বেশি হওয়ায় মানুষ ডেডসিতে ডোবে না।

Pages