ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি: ফার্মেসি বিভাগে পড়াশোনা

 হতে চান ফার্মাসিস্ট

আলমগীর কবীর

বাবা ডাক্তার। সেই কারণে ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখেন ফার্মাসিস্ট হবেন। ভর্তি হলেন ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের (WUB) ব্যাচেলর অব ফার্মেসি বিভাগে। ভর্তির পর নিয়মিত ক্লাস, সময়মতো ফল প্রকাশসহ শিক্ষকদের আন্তরিকতার কারণে অন্য ক্যাম্পাসের বন্ধুদের চেয়ে অনেকটাই এগিয়ে গেছেন তিনি - বলছিলাম ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের (WUB) ফার্মেসি বিভাগে পঞ্চম সেমিস্টারের ছাত্র মামুনের কথা।

ল্যাবের কথা

 ১৫৫ ক্রেডিট আওয়ারে আট সেমিস্টারে এ বিভাগে একজন শিক্ষার্থী বিএসসি ইন ফার্মেসি প্রোগ্রামটি সম্পন্ন করতে পারবেন। এ জন্য সময় লাগবে সর্বোচচ চার বছর। মানসম্মত উচচ শিক্ষা প্রদানে ফার্মাসি বিভাগে রয়েছে অভিজ্ঞ শিক্ষকম-লি, সুসজ্জিত ফার্মাসি ল্যাবসহ সব আবশ্যিক ল্যাব ফার্মাকোলজি ল্যাব, ইনোরগোনিক ল্যাব, ওরগানিক ল্যাব, সাইকোলজি ল্যাব, মাইক্রোবায়োলজি ল্যাব, বায়োকেমিস্ট্রি ল্যাব সমৃদ্ধ লাইব্রেরি ও কম্পিউটার ল্যাব। তা ছাড়া শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে শিক্ষাঋণ নেওয়ার সুযোগ ছাড়াও বিদেশে ক্রেডিট ট্রান্সপারের সুবিধা। এ ছাড়া ছাত্রছাত্রীদের জন্য সান্ধ্যকালীন ক্লাসেরও ব্যবস্থা আছে। যথাসময়ে ক্লাস ও পরীক্ষা শেষ করা এবং দ্রুত ফল প্রকাশে সুনাম রয়েছে এ বিভাগের। বিভাগের প্রধান জোবায়ের খালিদ লাবু এ কৃতিত্বের পুরোটাই দিলেন ছাত্র-শিক্ষকদের- ‘শিক্ষকদের আন্তরিক প্রচেষ্টা এবং ছাত্রছাত্রীদের লেখার আগ্রহ না থাকলে এ অসাধ্য সাধন সম্ভব হতো না।’

ক্লাসের বাইরে

ক্লাসের বাইরে সব সময়ই আড্ডা-গল্পে মুখরিত থাকে ফার্মেসি বিভাগ, গ্রুপস্টাডির মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ঝালিয়ে নেন প্রতিদিনের পড়াগুলো। এর পাশাপাশি নানা সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে জড়িত থাকেন তাঁরা। নবীনবরণ, আবৃত্তি, নাটক, কুইজসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সারা বছর জমজমাট থাকে এ বিভাগ। ফার্মেসি ক্লাব নামে এ বিভাগের ছাত্রছাত্রীদের রয়েছে একটি ক্লাব। সেই ক্লাবের পক্ষ থেকে শীতে বনভোজনের আয়োজন ছাড়াও প্রকাশ করা হয় দেয়ালিকা, কুইজ ও রচনা প্রতিযোগিতা, ইফতার পার্টি এবং বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির। তা ছাড়া আন্তসেমিস্টার ক্রিকেট ও ফুটবল প্রতিযোগিতা কিংবা বিতর্কেও বিভাগের ছাত্রছাত্রীদের রয়েছে উল্লেখযোগ্য সাফল্য। পড়াশোনার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড থাকার ফলে আমরা ছাত্রজীবনটাকে খুবই উপভোগ করছি-বললেন বিভাগের তৃতীয় সেমিস্টারের ছাত্র রুদ্র আরিফ।

চাকরির বাজার

ক্যারিয়ার নিয়ে নানা স্বপ্ন দেখেন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। কেউ হতে চান সচিব, কেউবা ফার্মাসিস্ট, কেউ আবার কাজ করতে চান বহুজাতিক  কোম্পানিতে। এ বিভাগের চাকরির বাজার সম্পর্কে বিভাগীয় প্রধান জোবায়ের খালিদ রুবেল জানালেন, ‘বিভাগের শিক্ষার্থীরা শীর্ষস্থানীয় ওষুধ কম্পানির ঊর্ধ্বতন পদ ছাড়া সচিবালয়, ব্যাংক-বীমাসহ বিভিন্ন বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে চাকরি পান। তা ছাড়া প্রতিবছর শিক্ষার্থীরা ক্রেডিট ট্রান্সপার করে বিভিন্ন দেশে যাচেছন।’

ভর্তির যোগ্যতা

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় প্রতিটিতে ২.৫০ পয়েনট অথবা এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় যেকোনো একটিতে সর্বনিম্ন ২ পয়েনটসহ মোট ৬ পয়েনট পেলে যে কেউ ভর্তি হতে পারবেন ফার্মেসি বিভাগে। তবে উচচমাধ্যমিক পর্যায়ে অবশ্যই পদার্থ, রসায়ন, জীববিজ্ঞান এবং গণিত থাকতে হবে। যদি গণিত না থাকে তাহলে অতিরিক্ত ৬ ক্রেডিট নিতে হবে।

ব্যাচেলর অব ফার্মেসিতে ভর্তি ফি ১৫ হাজার টাকাসহ সর্বমোট খরচ ৪,১১,৯০০ টাকা লাগবে। তবে শিক্ষার্থীদের জন্য এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফলের ওপর টিউশন ফি ছাড়ের ব্যবস্থা আছে।

 

Monday, 10. October 2011 - 7:26
Submitted 9 years 3 weeks ago by alamgir.